বাংলাদেশ এ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ নভেম্বর ২০১৮

বিএবির অ্যাক্রেডিটেশন সনদের ক্ষেত্র সম্প্রসারণের উদ্যোগ


প্রকাশন তারিখ : 2018-11-13

আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের ক্ষেত্র সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড (বিএবি)। এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশে স্থাপিত দেশিয় ও বহুজাতিক মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি এবং মান পরিদর্শন সংস্থার (ইন্সপেকশন বডি) অনুকূলে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানে স্বীকৃতি অর্জনের চেষ্টা চলছে। একই সাথে বিএবি বর্তমানে টেস্টিং ও ক্যালিব্রেশনের ক্ষেত্রে যে সনদ প্রদান করছে, তার স্বীকৃতিও বলবৎ রাখা হবে। 

বাংলাদেশ সফররত এশিয়া-প্যাসিফিক ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কোঅপারেশনের (এপ্লাক/অচখঅঈ) দুই সদস্যের একটি মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব মোঃ আবদুল হালিমের সাথে সাক্ষাত করতে এলে তিনি এ কথা বলেন। আজ শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ সাক্ষাতকার অনুষ্ঠিত হয়।  

এ সময় বিএবি’র মহাপরিচালক মোঃ মনোয়ারুল ইসলাম, প্রতিনিধিদলের প্রধান ও স্ট্যান্ডার্ডস্ মালয়েশিয়ার অ্যাক্রেডিটেশন বিষয়ক পরিচালক শাহরুল সাদরী বিন আলউই (ঝযধযধৎঁষ ঝধফৎর ইরহ অষরি), ইন্টারন্যাশনাল অ্যাক্রেডিটেশন নিউজিল্যান্ডের ব্যবস্থাপক জেফরি ডেভিড হালাম (এবড়ভভৎবু উধারফ ঐধষষধস)সহ বিএবি’র কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

সাক্ষাতকালে ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব প্রতিনিধিদলকে জানান, বাংলাদেশে বিশ্বমানের মান অবকাঠামো গড়ে তুলতে বর্তমান সরকার সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে। বিএবি’র প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বাড়াতে সরকার সম্ভব সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। এপলাক এবং আইলাকের গাইডলাইন অনুসরণ করে বিএবি ইতোমধ্যে অ্যাক্রেডিটেশন বিষয়ক কর্মকান্ড জোরদার করেছে। তিনি বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিএবি’র আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের সক্ষমতা অর্জনে এপলাকের সহায়তা কামনা করেন।  

এর আগে এপলাক মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল বিএবি’র কার্যালয় পরিদর্শন করেন এবং প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালকের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে বিএবি’র পক্ষ থেকে প্রতিনিধিদলকে সংস্থার সার্বিক কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত করা হয়। এ সময় মহাপরিচালক বিএবি’র প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর অবস্থান সুদৃঢ় করতে প্রতিনিধিদলের সহায়তা কামনা করেন।  

উল্লেখ্য, দেশে বিদ্যমান ল্যাবরেটরি, মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি, সনদ প্রদানকারী ও পরিদর্শন সংস্থাসহ ওজন, পরিমাণ ও গুণগতমানের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ এ্যাক্রেডিটেশন আইন, ২০০৬ অনুসারে বিএবি গঠিত হয়। এ প্রতিষ্ঠান ২০১৪ সালে এপলাকের পূর্ণ সদস্য পদ লাভ করে। এর ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠানটি ২০১৫ সালে টেস্টিং ও ক্যালিব্রেশনের ক্ষেত্রে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের জন্য এপলাকের পারস্পরিক স্বীকৃতি ব্যবস্থা (গজঅ) স্বাক্ষর করে।

বর্তমানে বিএবি মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি এবং পরিদর্শন সংস্থার (ইন্সপেকশন বডি) অনুকূলে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদান কার্যক্রমের স্বীকৃতির প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বিএবি’র সক্ষমতা যাচাইয়ের জন্য এপলাক মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফর করছে। ১১ থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত এ প্রতিনিধিদল বিএবি এবং সংস্থাটির অ্যাক্রেডিটেশন প্রাপ্ত বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সরেজমিনে পরিদর্শন করে এপলাক-এমআরএ কাউন্সিল সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে। এ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে উল্লিখিত দু’টি ক্ষেত্রে বিএবি’র অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহিত হবে।  


Share with :

Facebook Facebook